সাধারণ রোগীদের চিকিৎসায় মাশরাফির ভ্রাম্যমাণ হাসপাতাল

করোনাভীতির প্রভাব ভয়াবহভাবে পড়েছে চিকিৎসা ক্ষেত্রে। চিকিৎসাসেবায় নিয়োজিত ডাক্তার ও নার্সরা আতঙ্কিত দিনযাপন করছেন। অনেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক প্রাইভেট চেম্বার বন্ধ করে দিয়েছেন। হাসপাতালে দায়িত্ব পালনরত অনেক চিকিৎসক রোগী দেখতে ভয় পাচ্ছেন। আর এতে ভোগান্তি বেড়েছে সাধারণ রোগীদের। বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি পাশে দাঁড়িয়েছেন সাধারণ রোগীদের। নিজের প্রতিষ্ঠিত ‘নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের’ মাধ্যমে গড়ে তুলেছেন ভ্রাম্যমাণ হাসপাতাল।

ফেসবুকে দেয়া ভিডিও বার্তায় মাশরাফি বলেন, ‘আশাকরি সবাই ভালো আছেন, ঘরে আছেন। নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন আগামী ৫ই মার্চ থেকে ভ্রাম্যমাণ চিকিৎসাব্যবস্থা চালু করছে।
আমরা মনে করছি, খাদ্যদ্রব্য সরবরাহের পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণ চিকিৎসাটাও জরুরী। কারণ করোনা আক্রান্ত ছাড়াও অন্যান্য রোগে যারা ভুগছেন, তারা যেন সঠিক চিকিৎসাটা পান সেজন্যই আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।’

এমন উদ্যোগে ঝুঁকির কথা মাথায় রেখে সবার সহযোগিতা চান মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘আপনারা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চিকিৎসা নেবেন। আশা করি আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস আপনাদের সহযোগিতা করবে। আশা করি প্রিয় নড়াইলবাসী উপকৃত হবে।’

মাশরাফির এই উদ্যোগে এগিয়ে এসেছেন চিকিৎসক দম্পতি দীপ বিশ্বাস ও স্বপ্না রাণী সরকার। তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। নড়াইলের সন্তান আপনারা, নড়াইলকে সহযোগিতা করার জন্য এগিয়ে এসেছেন। আশা করি নড়াইলের অন্য চিকিৎসকরাও এগিয়ে আসবেন।’

এই কঠিন সময়ে সবাইকে ধৈর্য ধরার আহ্বান জানিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘এমুহূর্তে সবচেয়ে বেশি জরুরী ঘরে থাকা। আশা করছি আপনারা ঘরে থাকবেন, ধৈর্য ধারণ করবেন এবং এই সমস্যা আমরা খুব তাড়াতাড়ি উতরে যাব বলে আশা প্রকাশ করছি।’

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন